রেকর্ড গড়তে যাচ্ছেন ফ্রান্সের সাবেক প্রেসিডেন্ট সারকোজি

 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ঘুষ গ্রহণ ও ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগে ফ্রান্সের সাবেক প্রেসিডেন্ট নিকোলা সারকোজির চার বছরের কারাদণ্ড হতে পারে। ফ্রান্সের একটি আদালতে সারকোজির বিচারের শুনানি চলছে এবং বুধবার দেশটির অ্যাটর্নি জেনারেল সাবেক এই প্রেসিডেন্টের জন্য চার বছরের কারাদণ্ডের আবেদন জানিয়েছেন। খবর পার্সটুডে’র।

২০০৭ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালনকারী সারকোজির বিচারের শুনানি গত ২৩ নভেম্বর শুরু হয়েছে এবং তা আজ (বৃহস্পতিবার) শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।  প্যারিস থেকে আল-জাযিরা জানিয়েছে, সারকোজির বিরুদ্ধে দুর্নীতি, লিবিয়ার রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে উৎকোচ গ্রহণ ও তা গোপন রাখার প্রচেষ্টা এবং নির্বাচনি প্রচারাভিযানের কাজে অবৈধভাবে অর্জিত সম্পদ ব্যবহার করার অভিযোগ আনা হয়েছে।

ফ্রান্সের সাবেক এই প্রেসিডেন্ট ২০০৭ সালের নির্বাচনি প্রচারের কাজে লিবিয়ার সাবেক শাসক মুয়াম্মার গাদ্দাফির কাছ থেকে পাঁচ কোটি ইউরো ঘুষ গ্রহণ করেছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে। ২০১১ সালে গণ অভ্যুত্থানে গাদ্দাফি ক্ষমতাচ্যুত ও নিহত হওয়ার পর তার জীবিত পুত্র সাইফুল ইসলাম গাদ্দাফির পক্ষ থেকে প্রথম এই অভিযোগ উত্থাপন করা হয়।

এছাড়া, সম্প্রতি বিচারককে উৎকোচ প্রদানের মাধ্যমে আদালতের রায়কে নিজের অনুকূলে আনার প্রচেষ্টার দায়েও অভিযুক্ত হয়েছেন সারকোজি।

সারকোজির কারাদণ্ড হলে তা হবে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ফ্রান্সের ইতিহাসে প্রথম কোনো ঘটনা যেখানে একজন সাবেক প্রেসিডেন্ট দুর্নীতির অভিযোগে জেল খাটতে যাচ্ছেন।

 

 

 

Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here