ভ্যাট ফাঁকি দিতে নাম বদলেও  রক্ষা হলো না

 

ভ্যাট ফাঁকি দিতে নাম বদলেও রক্ষা হলো না

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীর শাহবাগ বিপনী বিতানের একটি রেস্টুরেন্ট বকেয়া পরিহারের উদ্দেশ্যে নাম পরিবর্তন করেছে। নতুন নামেও ভ্যাট ফাঁকির তথ্য পেয়েছে ভ্যাট গোয়েন্দা। কিন্তু নাম পরিবর্তন করেও ভ্যাট গোয়েন্দার অভিযানে তাদের শেষ রক্ষা  হয়নি।

এর আগে রেস্টুরেন্টটির আগের নাম ছিল মৌলী স্ন্যাক্স। তাদের কাছে অডিট কর্তৃপক্ষের আগের একটি অডিট আপত্তি ছিল ২ লাখ ৯৫ হাজার টাকা। পরে এই বকেয়া পরিহারের উদ্দেশ্যে তারা এর নাম পরিবর্তন করে নিউ মৌলী রেস্টুরেন্ট হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে।

জানা যায়, গত ১৯ অক্টোবর ভ্যাট ফাঁকির গোপন তথ্য থাকায় ভ্যাট গোয়েন্দার একটি দল নিউ মৌলীতে অভিযান চালিয়ে অপরিশোধিত এই বকেয়া অনাদায়ের প্রমাণ পান।

অভিযানে গোয়েন্দা দল রেস্টুরেন্টে উপস্থিত ভোক্তাদের সংখ্যা ও পরিশোধিত  ভ্যাটের সাথে গরমিল পান। কাউন্টার যাচাই করে দেখা যায়, তারা ভ্যাট আইন অনুসারে কোন মূসক-৬.৩ রেজিস্টার ও অন্যান্য হিসাবপত্র সংরক্ষণ করেন না। কোন ভোক্তাকে প্রকৃত ভ্যাট চালান দেয়া হয় না।

এদিকে বিভিন্ন স্থান থেকে রেস্টুরেন্টটির ৫৪ দিনের একটি কাঁচা চালানের বিক্রয় হিসাব পাওয়া যায়। এতে দেখা যায়, তারা ২৬ লক্ষ টাকা বিক্রয় করেছে। ভ্যাট ফাঁকি দিয়েছে ২ লাখ ১৭ হাজার টাকা।

রেস্টুরেন্টটি ধানমন্ডি ভ্যাট সার্কেলে প্রতি মাসে ভ্যাট জমা দিয়ে আসছে মাত্র ৫-১০ হাজার টাকা। বাড়ি ভাড়া ও সুদসহ এই সময়ে নিউ মৌলী ভ্যাট ফাঁকি দিয়েছে ২ লাখ ৯২ হাজার টাকা।

অপরদিকে, একইদিন ১৯ অক্টোবর পান্থপথ সংলগ্ন গ্রিন রোডে গ্রিন চিলি ফাস্ট ফুড এন্ড মিনি চায়নিজ রেস্টুরেন্টে ভ্যাট গোয়েন্দার দল অভিযান চালিয়ে ভ্যাট চালান ছাড়াই খাবারপণ্য বিক্রয় করার প্রমাণ পান। তাৎক্ষণিকভাবে গোয়েন্দা দল রেস্টুরেন্টের পাঁচ মাসের  গোপন বিক্রয় তথ্য উদ্ধার করতে সক্ষম হন। এতে ৭ লাখ ২৬ হাজার টাকা ভ্যাট ফাঁকির তথ্য বেরিয়ে আসে।

দুইটি অভিযানের নেতৃত্ব দেন গোয়েন্দা সংস্থার সহকারী পরিচালক জুলফিকার আলী।

 

Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here