নারী আইপিএলে সালমার কীর্তি - Bhorer Kagoj

নারী আইপিএলে প্রথমবার খেলার সুযোগ পেয়েই বাজিমাত করেছেন টাইগ্রেস দলের তারকা খেলোয়াড় ও অধিনায়ক সালমা খাতুন। তিনি গতকাল ফাইনাল ম্যাচে বল হাতে দুর্দান্ত নৈপুণ্য প্রদর্শন করেন। ১৮ রান খরচায় প্রতিপক্ষের অধিনায়ক হারমানপ্রিত কাউরসহ ৩ উইকেট শিকার করে নিজ দল ট্রেইলব্লেজার্সকে শিরোপা জেতাতে রেখেছেন অগ্রণী ভুমিকা।

গতকাল সোমবার আরব আমিরাতের শারজায় অনুষ্ঠিত ফাইনালে সুপারনোভাসকে ১৬ রানে হারিয়ে শিরোপা জেতে তার দল। এমনকি সালমাকে নারী আইপিএলে শিরোপা জয়ের কৃতিত্ব দিলেন অধিনায়ক স্মৃতি মান্ধানা। ম্যাচ শেষে ট্রেইলব্লেজার্সের অধিনায়ক বলেন, খুব ভালো লাগছে আমরা শিরোপা জিতেছি। তবে সালমা দুর্দান্ত বোলিং করেছে। এরকম একটা স্পেলে ম্যাচ না জেতার কোনো কারণ নেই। সে দলের অভিজ্ঞ ক্রিকোরদের অন্যতম। আমি সালমার হাতে বল তুলে দিয়ে বলেছিলাম, নিজের ওপর বিশ্বাস রাখো। সে ম্যাচ জেতানো স্পেল করে দেখিয়েছে।

নারী আইপিএলে এর আগে প্রথম রাউন্ডের দুই ম্যাচেও ভালো বোলিং করেছিলেন সালমা। কিন্তু দলের অন্যদের পারফরম্যান্সের ভিড়ে তাকে আলাদা করার সুযোগ ছিল না। তাই আসরের শেষ এবং গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচটিতে জ্বলে ওঠেন। আমিরাতের শারজায় অনুষ্ঠিত ফাইনালে প্রথমে ব্যাটিং করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট খুইয়ে ১১৮ রান তুলেছিল সালমার দল। কিন্তু তার বোলিংয়ে স্বল্প রানের জবাবে কোমড় সোজা করে দাড়াতে পারেনি প্রতিপক্ষের ব্যাটসম্যানরা। ম্যাচে সুপারনোভাসের ইনিংসের ১৩তম ওভারে প্রথমবারের মতো আক্রমণে আনা হয় সালমাকে। তার দ্বিতীয় ওভারে ভাঙে হারমান ও শশীকলার ৩৭ রানের ইনিংস সর্বোচ্চ জুটি। ইনিংসের ১৫তম ওভারে সালমার ওভারে প্যাডেল সুইপ করতে গিয়ে ফাইন লেগে ঝুলন গোস্বামীর হাতে ধরা পড়েন ১৯ রান করা শশীকলা। যা বাড়িয়ে দেয় ট্রেইলবেøজার্সের সম্ভাবনা।

পরে নিজের চতুর্থ ও শেষ ওভারে জয়ের পথ নিশ্চিত করেন। দুর্দান্ত বোলিং করে সুপারনোভাস অধিনায়ক হারমানকে সরাসরি বোল্ড করে দেন সালমা। এ দুই উইকেট নেয়ার মাধ্যমেই মূলত দলের নিশ্চিত করেন বাংলাদেশের এই তারকা ক্রিকেটার। কিন্তু এখানেই থেমে থাকেননি তিনি, নিজের শেষ ওভারে শূন্য রানে ফেরান পুজা ভাস্ত্রাকারকেও। সবমিলিয়ে ৪ ওভারের স্পেলে কোনো বাউন্ডারি হজম না করে ১৮ রান খরচায় ৩ উইকেট নেন সালমা। যা পুরোপুরি শেষ করে দেয় সুপারনোভাসের জয়ের আশা।

এছাড়া ক্রিকেটপ্রেমীরা জানেন, টাইগ্রেস দলে উজ্জ্বল তারকা প্রথিতযশা খেলোয়াড় সালমা খাতুন। ক্রিকেট মঞ্চে তার অভিজ্ঞতার কোন ঘাটতি নেই। তিনি ডানহাতে ব্যাটিং করে থাকেন। পাশাপাশি ডানহাতে অফ ব্রেক বোলিংও করে থাকেন। ২০১১ সালে ২৬ নভেম্বর সাভারে অনুষ্ঠিত আয়ারল্যান্ড নারী দলের বিপক্ষে ওয়ানডে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয় সালমার। এরপর ২০১২ সালে ২৮ আগস্ট, ডাবলিনে আয়ারল্যান্ড দলের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি আন্তর্জাতিকে অভিষেক হয় তার। এমনকি দেশের হয়ে প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচের অধিনায়কও ছিলেন তিনি। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ৪ উইকেটে জয়ী সেই ম্যাচের সেরা পারফর্মারও ছিলেন সালমা। তার ১ উইকেট এবং ৪১ রানের ঝলমলো ইনিংস বাংলাদেশকে ম্যাচ জেতায়। সালমার নেতৃত্বেই প্রথমবারের মতো কোনো আন্তর্জাতিক ট্রফি জেতে বাংলাদেশ নারী দল। ২০১৮ সালে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা টি-টোয়েন্টি এশিয়া কাপের ফাইনালে হারায় শক্তিশালী ভারতকে।

 

Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here