জমি লিখে নিয়ে বৃদ্ধাকে রাস্তায় ফেলে পালিয়েছে নাতিরা




অমিত রায়,

স্টাফ রিপোর্টার, ময়মনসিংহ 

 

বসত বাড়ির জমি লিখে নিয়ে ১০২ বছর বয়সী হাসিনা বেওয়াকে কনকনে শীতের মধ্যে রাস্তায় ফেলে পালিয়ে গেছে নাতিরা। এঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বৃদ্ধার দুই সৎ ছেলেকে আটক করেছে পুলিশ।

 

অমানবিক এই আচরণের ঘটনাস্থল ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার রাঘাইচটী গ্রাম। পরে শতবর্ষী ঐ বৃদ্ধাকে তিতাত গ্যাস অফিসের কাছাকাছি রাস্তা থেকে উদ্ধার উপজেলা স্বাস্থ্য কসপেৱক্সে ভর্তি করে পুলিশ। ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছে অভিযুক্ত নাতিরা।

 

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে গফরগাঁও থানার এসআই আহসান হাবিব জানিয়েছেন, ‘বৃদ্ধা হাসিনা বেওয়াকে রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখে কে বা কারা ৯৯৯ নাম্বারে ফোন করেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করে।’

 

স্থানীয় এলাকাবাসী জানিয়েছেন, গফরগাঁও পৌর এলাকার ৬নং ওয়ার্ডের রাঘাইচটী গ্রামের মরহুম আব্দুল খালেকের স্ত্রী হাসিনা বেওয়া। এক ছেলে ও এক মেয়ে রেখে স্বামী আব্দুল খালেক মারা যান প্রায় ২৫ বছর আগে। স্বামী মারা যাওয়ার পর হাসিনা বেওয়া ছেলে শহিদ মিয়া ও মেয়ে জোসনা বেগমকে নিয়ে বসবাস করতেন শহরের তিতাস গ্যাস অফিস সংলগ্ন রাঘাইচটী এলাকায়। ছেলে শহিদ মিয়া বিয়ে করে স্ত্রী-সন্তান নিয়ে থাকেন ত্রিশাল উপজেলার ধলা বাজারে। আর মেয়ে জোসনা বেগম মারা গেছেন ৪ থেকে ৫ বছর আগে।

 

হাসিনা বেওয়ার বসত বাড়িতে যে দেড় শতক জমি ছিল, তা সম্প্রতি কৌশলে লিখে নেয় মেয়ের ঘরের নাতি ইব্রাহীম ও ইস্রাফিল। এরপরই বয়সের ভারে চলাফেরা করতে না পারা হাসিনা বেওয়াকে ভোরে কনকনে শীতের মধ্যে রাস্তায় ফেলে পালায় অভিযুক্ত দুই নাতি।

বৃদ্ধার সৎ ছেলে জালাল মিয়া জানিয়েছেন, ‘মা হাসিনা বেওয়া আমাদের সাথে থাকেন না। জমি লিখে নেওয়ার পর থেকে নাতি ইব্রাহীম ও ইস্রাফিলের সঙ্গে থাকেন। তারা যে কাজটি করেছে তা খুবই দু:খজনক।’





Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here