গৃহবধূর চুল কেটে নির্যাতন, স্বামী-শাশুড়ি গ্রেফতার


গৃহবধূর চুল কেটে নির্যাতন, স্বামী-শাশুড়ি গ্রেফতার

প্রকাশিত: ০৯:৫৬, ০৬ জানুয়ারি ২০২১

আপডেট: ০৯:৫৬, ০৬ জানুয়ারি ২০২১

নওগাঁ সংবাদদাতা: নওগাঁর নিয়ামতপুরে যৌতুক দিতে না পারায় এক গৃহবধূর চুল কেটে নির্যাতন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। নির্যাতনের শিকার গৃহবধূকে নিয়ামতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। উপজেলার ভাবিচা ইউনিয়নের আমইল সোনারপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় গৃহবধূর মা বাদী হয়ে আজ (বুধবার) সকালে নিয়ামতপুর থানায় মামলা করেন। পরে গৃহবধূর স্বামী ও শাশুড়িকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ১৬ বছর আগে উপজেলার ভাবিচা ইউনিয়নের আমইল  সোনারপাড়া গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের সঙ্গে বিয়ে হয় নির্যাতনের শিকার গৃহবধূর। বিয়ের পর থেকে যৌতুকের জন্য প্রায়ই ওই গৃহবধূকে নির্যাতন করতেন তার স্বামী।

গত ১৫ ডিসেম্বর গৃহবধূর শাশুড়ি রহিমা বেগমের প্ররোচনায় যৌতুক দাবি করে মাথার চুল কেটে দেয় এবং শারীরিক নির্যাতন করেন স্বামী আব্দুর রাজ্জাক। এমনকি গৃহবধূর পরিবারের সঙ্গেও যোগাযোগ করতে দেয়া হতো না।

গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে আবারও স্বামী আব্দুর রাজ্জাক শারীরিক নির্যাতন করে মাটিতে ফেলে রাখে। এরপর প্রতিবেশীর মাধ্যমে ওই গৃহবধূর মা সংবাদ পেয়ে দেখা করতে আসলে তাকে দেখা করতে দেওয়া হয়নি। পরে তিনি নিরুপায় হয়ে থানায় অভিযোগ করলে পুলিশ গৃহবধূকে উদ্ধার করে নিয়ামতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

নিয়ামতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ন কবির বলেন, নির্যাতনের ঘটনায় গৃহবধূর মা থানায় মামলা করেছেন। মামলা হওয়ার পর অভিযান চালিয়ে গৃহবধূর স্বামী ও শাশুড়িকে গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।









Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here