গুরুত্বপূর্ণ ফল নির্ধারণী রাজ্যগুলোতে বাইডেন এগিয়ে

 

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ভোটগণনা প্রায় শেষের দিকে। আর মাত্র পাঁচটি রাজ্যে ভোট বাকি। সবশেষ তথ্য বলছে, ২৬৪ ইলেকটোরাল ভোট নিয়ে জয়ের খুব কাছাকাছি ডেমোক্রেট প্রার্থী জো বাইডেন। চার রাজ্যে ট্রাম্প এগিয়ে থাকলেও এই রাজ্যগুলোতে জয় ট্রাম্পকে ২৬৮টি ইলেকটোরাল কলেজ পর্যন্ত নিয়ে যেতে সক্ষম। ২৭০টি ইলেকটোরাল ভোট যে পাবেন হোয়াইট হাউস তার।

তবে মিশিগান এবং উইসকনসিনের মতো দুটি গুরুত্বপূর্ণ রাজ্যেই এক শতাংশ ভোট ব্যবধানে এগিয়ে গেছেন বাইডেন।

রাজ্য দুটিতে ট্রাম্প ও বাইডেনের পক্ষে পড়া মোট ভোট যথাক্রমে; ৫০ ও ৪৯ শতাংশ। ইলেক্টোরাল ভোটের জন্য আরেক নির্ধারণী রাজ্য নেভাদাতেও প্রাক্তন ভাইস প্রেসিডেন্টের এগিয়ে থাকার কথা জানা যায়।

নির্বাচনের পর ভোট গণনা ও ফল ঘোষণার পালা চলছে যুক্তরাষ্ট্রে। শতভাগ ভোট হিসাব করে কোনো রাজ্যই ফল ঘোষণা করেনি। তবে একটি নির্দিষ্ট সংখ্যার ভোট গণনা করা হয়ে গেছে, যার ভিত্তিতে দেওয়া হচ্ছে বিজয়ের ইঙ্গিত ।

মঙ্গলবার নির্বাচনী রাতের তুলনায় আজ বুধবারই বেশি উজ্জ্বল মনে হচ্ছে ডেমোক্রেট প্রার্থী জো বাইডেনের জয়ের সম্ভাবনা।

এদিন স্থানীয় সময় ভোর ৫টা নাগাদ গুরুত্বপূর্ণ নির্ধারণী রাজ্য উইসকনসিনে ট্রাম্পের চাইতে এগিয়ে যান বাইডেন। প্রদেশটির সবচেয়ে বড় শহর মিলওয়াকিতে এসময় ডাকের মাধ্যমে আসা ভোট গোণা শেষ হয়। তাতে বাইডেনের পক্ষে যায় ১,৭০,০০০ ভোট।

ডাকে পাওয়া ব্যালট গোণার কাজ চলছে রাজ্যের অন্যান্য শহরেও। ধারণা করা হচ্ছে, এইসব ভোটের অধিকাংশ পাবেন বাইডেন। তবে মোট ৯৫ শতাংশ ভোটের হিসাব ইতোমধ্যেই হয়ে গেছে।

সাম্প্রতিক ফলের প্রেক্ষিতে এক শতাংশ পয়েন্টের সামান্য ব্যবধানে রাজ্যটিতে এগিয়ে গেছেন বাইডেন। ইতোপূর্বে, এখানে ট্রাম্পের নিশ্চিত বড় জয় অনুমান করা হয়েছিল। বাইডেন নির্বাচনী শিবিরের কর্মকর্তারা জানান, রাজ্যটিতে জয়ের ধারা অব্যাহত থাকবে বলেই তারা বিশ্বাস করেন।

এপর্যন্ত ৫০ শতাংশ ভোট গেছে বাইডেনের পক্ষে। আর ৪৯ শতাংশ পেয়েছেন ট্রাম্প। অন্যান্য প্রার্থী ১ শতাংশ।

মোট গণনার ভিত্তিতে প্রাথমিক ফল জানাচ্ছে অন্যান্য রাজ্যও। ডেমোক্রেট দলের শক্ত সমর্থন আছে মিশিগানের মতো এমন কিছু রাজ্যে নির্বাচনী রাতে এগিয়ে ছিলেন ট্রাম্প। কিন্তু, বুধবার নাগাদ সেখানেও ধীরে ধীরে ব্যবধান কমিয়ে এগিয়ে গেছেন জো বাইডেন।

উইসকনসিন এবং পেনিসেলভানিয়ার মতো এরাজ্যেও প্রথমেই ডাকের মাধ্যমে পাওয়া ভোট গণনা করা হয়নি। কিন্তু, বিপুল সংখ্যক ডাকযোগে পাওয়া ভোট হিসাব করা শুরু হওয়া মাত্র ট্রাম্পের যে বিশাল জয় প্রথমদিকে দেখা যাচ্ছিল, তা ম্লান হওয়া শুরু করে। পর্যবেক্ষরাও প্রাথমিকভাবে রিপাবলিকান দলের এগিয়ে থাকাকে অসম্পূর্ণই বলেছিলেন।

৯৬ শতাংশ ভোট গণনার পর মিশিগানে বাইডেন এগিয়ে আছেন ৫০ শতাংশ ভোট পেয়ে। ট্রাম্প পেয়েছেন ৪৯ শতাংশ। অন্যান্য প্রার্থী ২ শতাংশ।

ডোনাল্ড ট্রাম্প আগেভাগেই বিজয় ঘোষণা করলেও, তা ছিল অসম্পূর্ণ ফলাফলের ভিত্তিতে করা মিথ্যে দাবি।

জয়ের জন্য যে ২৭০টি ইলেক্টোরাল ভোট দরকার, তেমন সংখ্যাগরিষ্ঠতা দিতে পারে যে রাজ্যগুলো সেখানে বাইডেনই প্রথম থেকে এগিয়ে ছিলেন। নতুন করে আজ উইসকনসিন এবং মিশিগানের পাশপাশি আরেক জয় নির্ধারনী রাজ্য- নেভাদাতেও আংশিক এগিয়ে গেছেন ডেমোক্রেট প্রার্থী।

এই রাজ্যে ডাক যোগে দেওয়া আরও অনেক ভোট এসেছে নির্বাচনের দিন। সেগুলো গণণা শেষে বাইডেনের এগিয়ে থাকা আরও দৃঢ় হবে, এমন অনুমান করা হচ্ছে।

এদিকে পেনসিলভানিয়া রাজ্যে যেখানে ট্রাম্প বেশি ভোট পেয়ে এগিয়ে ছিলেন সেখানে কমে আসছে ব্যবধান।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে দশটা পর্যন্ত মোট ভোটের ৯০ শতাংশ ভোট গণনা শেষ হয়েছে। এক লাখ ৬৪ হাজার ৪১৪ ভোট পেয়ে এগিয়ে ছিলেন ট্রাম্প। বুধবার সন্ধ্যা নাগাদ বাইডেনের তুলনায় ট্রাম্পের ভোটের ব্যবধান ছিল তিন লাখ ৭৯ হাজার ৬৩৯টি।

সিবিএস এর প্রতিবেদন অনুযায়ী পোস্টাল ভোট এই মোড় অনেকটা ঘুরিয়ে দিয়েছে। পেনসিলভানিয়া রাজ্যের ৩১ লাখ পোস্টাল ভোটের মধ্যে ৬৩%পড়েছে ডেমোক্র্যাটদের পক্ষে।

২০টি ইলেক্টরাল কলেজের ভোট থাকায় পেনসিলভানিয়া একটি গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচনী রাজ্য। ২০১৬ সালে ট্রাম্পের পক্ষে ভোট দিয়ে দোদুল্যমান রাজ্য হিসেবে আত্মপ্রকাশের আগে এটি টানা চয় বার ডেমোক্র্যাটদের পক্ষে ভোট দিয়েছে।

জোসেফ রবিনেট বাইডেন জুনিয়র, জো বাইডেন হিসেবে পরিচিত। যুক্তরাষ্ট্রের ৪৭তম ভাইস প্রেসিডেন্ট। সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সঙ্গে দুই মেয়াদে কাজ করেন। ১৯৭৩ থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত ডেলাওয়ার থেকে সিনেটর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

বাইডেনের জন্ম ১৯৪২ সালের ২০ নভেম্বর পেনসিলভানিয়ার স্ক্রানটনে। স্ক্রানটন, নিউ ক্যাসল কাউন্টি ও ডেলাওয়ারে তার বেড়ে ওঠা। চার ভাইবোনের মধ্যে সবার বড় তিনি। বাবা জোসেফ রবিনেট বাইডেন সিনিয়র, মা ক্যাথরিন ইউজেনিয়া ফিনেগান। তার মা আইরিশ বংশোদ্ভূত।

বাইডেন ডেলাওয়ার ইউনিভার্সিটিতে ইতিহাস ও রাষ্ট্রবিজ্ঞানে পড়াশোনা করেন। পরে তিনি সিরাকিউজ ইউনিভার্সিটি থেকে আইনে ডিগ্রি নেন।

Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here