কলকাতা ফিরল কলকাতায়

ট্রেনে চেপে শহর বা শহরতলির অজস্র মানুষ ছুটছে। সকাল-সন্ধ্যায় একই চিত্র দেখা যেত কলকাতায়। এই শহরের অপরিহার্য অঙ্গ ছিল ট্রেন। সে হোক পাতাল বা লোকাল ট্রেন। কিন্তু করোনার কোপে এ বছরের ২৩ মার্চ থেকে বন্ধ হয়ে গিয়েছিল কলকাতার এই দুই ট্রেন। সেই চিরচেনা রূপে আজ বুধবার থেকে ফিরছে আনন্দনগরী।

আজ ভোর পাঁচটা থেকে ফের ঘুরল কলকাতার লোকাল ট্রেনের চাকা। চালু হয়ে গেল কলকাতার ঐতিহ্যবাহী ইলেকট্রিক লোকাল ট্রেন। এই ট্রেন চলাচল শুরু হয় পশ্চিমবঙ্গের তিনটি রেল ডিভিশন থেকে। আজ চালু হলো ৬৯৬টি ট্রেন। এর মধ্যে শিয়ালদহ ডিভিশনে ৪১৩টি, হাওড়া ডিভিশনে ২০২টি ও খড়গপুর ডিভিশনে ৮১টি ট্রেন। সেই সঙ্গে মেট্রো বা পাতালরেলের সংখ্যাও আজ থেকে বাড়ানো হয়েছে।

রেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, করোনার বিধি মেনে প্রত্যেক যাত্রীকে ট্রেনে উঠতে হবে।

বসতে হবে সামাজিক দূরত্ব মেনে। বসার তিন আসনের মাঝেরটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তাই তিন আসনে বসতে হবে এখন দুজন যাত্রীকে। মাঝের আসনে না বসার অনুরোধ জানিয়ে রেল কর্তৃপক্ষ একটি স্টিকারও লাগিয়ে দিয়েছে।

রেল কর্তৃপক্ষ ট্রেন চলাচল শুরুর আগে নির্দেশিকা প্রকাশ করে বলেছে, প্রত্যেক যাত্রীকে মাস্ক পরে ট্রেনে উঠতে হবে। প্রয়োজনে  হাতের কাছে রাখতে হবে স্যানিটাইজার। স্টেশনেও থাকছে স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা। প্রতিটি ট্রেনকে প্রতিদিনই স্যানিটাইজ করে নামাতে হবে। প্রতিটি স্টেশনকে পরিষ্কার রাখতে হবে। পরিষ্কার রাখতে হবে শৌচাগারকে। স্টেশনে মোতায়েন রাখতে হবে পুলিশ ও রেল পুলিশকে।

রাখতে হবে গার্ডরেলও। ওই গার্ডরেলই দেখিয়ে দেবে ঢোকা ও বের হওয়ার পথ।
রেল কর্তৃপক্ষ আরও জানিয়েছে, অফিস সময়ে যাত্রীদের চাপ কমাতে চালানো হবে ৮৫ শতাংশ ট্রেন।

Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here